ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ই নভেম্বর ২০১৮ , ২রা অগ্রহায়ণ ১৪২৫, সকাল ১১:৪৫

ইউনিস-আজহারের শতকে ব্যাকফুটে বাংলাদেশ

তৃতীয় উইকেটে অভিজ্ঞ ইউনিস এবং ওয়ানডে অধিনায়ক আজহারের ২৫০ রানের জুটিতে মিরপুর টেস্টের প্রথম দিন শেষে পাকিস্তানের সংগ্রহ ৩ উইকেট হারিয়ে ৩২৩ রান। ক্রিজে আছেন আজহার (১২৭*) এবং মিসবাহ (৯*)।

টস জিতে মুশফিকের বোলিঙের সিদ্ধান্ত নিয়ে চলছে সমালোচনা। ব্যাটসম্যান হিসেবে দেশসেরা এই ব্যাটসম্যানের অধিনায়ক হিসেবে বাজে পারফরম্যান্সের বিষয়টা আবার নতুন করে আলোচনার টেবিলে উঠে এসেছে। এই উইকেটে টস জিতে বোলিঙের সিদ্ধান্ত তার ওপর ম্যাচের দ্বিতীয় বলেই দলে আরেক সমালোচিত অন্তর্ভুক্তি শাহাদাত হোসেনের ইঞ্জুরি- দুর্ভাগ্য যেন মিরপুর টেস্টের প্রথম থেকেই বাংলাদেশের সঙ্গী।

শাহাদাতের ইঞ্জুরির পর বাধ্য হয়ে সৌম্যকে দিতে বল করান মুশফিক। ম্যাচ যত এগোতে থাকে মাত্র ২ সীমার ও একজন বিশেষজ্ঞ স্পিনার নিয়ে খেলতে নামার সিদ্ধান্ত ভালই ভোগাতে থাকে বাংলাদেশকে। শাহাদাত এবং শহীদ ছাড়া বোলার আছেন শুধু তাইজুল। বিশ্বমানের অলরাউন্ডার হওয়ায় সাকিবকেও বোলার হিসেবে ধরা যায়। সেহিসেহে বাংলাদেশের বোলার সংখ্যা ৪। ব্যাটিং নির্ভর ক্রিকেটের এই যুগেও ৪ ব্যাটসম্যান নিয়ে ওয়ান ডে খেলারও সাহস করে না বিশ্বের বড় বড় দলগুলো। সেখানে ৪ বোলার নিয়ে কিভাবে বাংলাদেশ টেস্ট খেলতে নামল তা এক বিস্ময় বৈ কি!

অবশ্য ঐ দু’টি ক্যাচ নো বল না হলে ম্যাচের চিত্রনাট্য অন্যরকম হলেও হতে পারত। দুই সেঞ্চুরিয়ান আজহার এবং ইউনিসই ক্যাচ আউটের শিকার হয়েছিলেন। কিন্তু ফ্রন্ট ফুট নো বলের কারনে বেঁচে যান দুইজনই। নো বলে আউট এবং বাংলাদেশ- বিশ্বকাপে ভারতের পর থেকে এটা যেন নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ম্যাচের চতুর্থ ওভারেই মোহম্মদ হাফিযকে ফিরিয়ে দেন শহীদ। ব্যাক্তিগত ১৮ রানে শহীদের বলে থার্ড স্লিপে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যাচ্ছিলেন আজহারও। কিন্তু রিপ্লেতে দেখা যায় শহীদের পা দাগের বাহিরে ছিল। এরপরও দুইবার আউট হতে হতে বেঁচে যান তিনি। তাঁর ব্যক্তিগত ৩৪ ও ৩৫ রানে দুইটি হাফ চান্সকে চান্সে পরিনত করতে ব্যর্থ হয় বাংলাদেশ।

লাঞ্চের খানিক আগে তাইজুল সামি ইসলামকে তাঁর শিকারে পরিনত করেন। এরপর ব্যাটিঙে আসেন ইউনিস। লাঞ্চের আগে খেলা ১৫ বল থেকে মাত্র ১ রান সংগ্রহ করেন ইউনিস। কিন্তু এরপরই বিধ্বংসী চেহারা ধারন করেন তিনি। পঞ্চাশ তুলে নেন মাত্র ৭২ বলে। ১৪৮ করে দিনের খেলা শেষ হতে যখন আর ৩১ বলে, তখন শহীদের বলে শুভাগতর হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন ইউনিস। কিন্তু এর আগেই ম্যাচের প্রথম দিনটি সম্পূর্ন নিজেদের করে নিতে যা করার তা করে ফেলেন তিনি। ১৪৮ রান করেন মাত্র ১৯৫ বলে, স্ট্রাইক রেট ৭৫.৮৯। এর মধ্যে রয়েছে ১১টি ৪ ও ৩টি ছক্কা।

পাকিস্তানের দিনে নিজেকে হারিয়ে খুঁজেছে বাংলাদেশ। সম্ভাব্য সব রকম অস্ত্রই কাজে লাগানোর চেষ্টা করেছেন মুশফিক। এমনকি তামিম ও মমিনুলকে দিয়েও বোলিং করানো হয়েছে। কিন্তু সব রকম অস্ত্রই ব্যর্থ হয়েছে পাকিস্তানীদের কাছে। কাল দ্বিতীয় দিনে ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয় নিয়ে মাঠে নামবে বাংলাদেশ।

আশরাফ আজীজ ইশরাক ফাহিম

আশরাফ আজীজ ইশরাক ফাহিম

শখের লেখক, ব্লগার এবং অনলাইন এক্টিভিস্ট, কিশোর ও ক্রীড়া সাংবাদিক। বর্তমানে বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ পাবলিক কলেজের বিজ্ঞান বিভাগে অধ্যয়নরত। আদি নিবাস রংপুর।
আশরাফ আজীজ ইশরাক ফাহিম

Latest posts by আশরাফ আজীজ ইশরাক ফাহিম (see all)

আশরাফ আজীজ ইশরাক ফাহিম

আশরাফ আজীজ ইশরাক ফাহিম

শখের লেখক, ব্লগার এবং অনলাইন এক্টিভিস্ট, কিশোর ও ক্রীড়া সাংবাদিক। বর্তমানে বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ পাবলিক কলেজের বিজ্ঞান বিভাগে অধ্যয়নরত। আদি নিবাস রংপুর।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top
Loading...