ঢাকা, শনিবার, ২৫শে মে ২০১৯ , ১১ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, রাত ৮:০৭

বাচ্চাদেরকে যে কারনে ধুলো-মাটির সংস্পর্শে যেতে দিবেন

বাচ্চাদেরকে মাটি-ধুলা থেকে দূরে সরিয়ে রাখবেননা। ছোট বয়সেই বিভিন্ন রকম মাইক্রোবের সাথে তার শরীরের ইমিউন সিস্টেম পরিচিত হয়ে গেলে তার শরীরে এন্টিবডির পরিমাণও হবে বেশী এবং সে বাকি জীবনে আদুরে ঘরের বাচ্চাদের চেয়ে সুস্থ্য জীবন যাপন করতে পারবে।

চিকেন পক্সের ব্যাপারে অনেক চিকিৎসাবিজ্ঞানীর অভিমত যে আপনার পাশের বাসার কোন বাচ্চার যদি চিকেন পক্স হয় তবে আপনার বাচ্চাদেরকে জোর করেই তার সাথে খেলতে পাঠান। এতে লাভ হবে যেটা, আপনার বাচ্চাদেরও চিকেন পক্স হবে ছোট বয়সেই কিন্তু পরে আর হবেনা। কারণ শরীরের রোগপ্রতিরোধ ব্যবস্থা বুঝে যাবে চিকেন পক্সের সাথে কিভাবে লড়তে হয় এবং কোন এন্টিবডি দিয়ে লড়তে হয়। সেই এন্টিবডি শরীরে থেকে যাবে এবং এর ভাইরাস শরীরের মিউজিয়ামে স্যাম্পল হিসেবে থেকে যাবে বাকি জীবনেও। যখনই নতুন কোন চিকেন পক্স ভাইরাস ঢুকবে, শরীরের সৈন্যরা যদি চিনতে পারে এই বদমাশ আগেও ঢুকেছিল তাহলে সর্বাত্বক আক্রমণ চালাবে তার উপরে। যার কারণে আর চিকেন পক্স হবার সম্ভাবনা নাই বড় বয়সে, নতুন করে যদি চিকেন পক্সের ভাইরাস শরীরে ঢুকে তাকে দেখে সাথে সাথেই চিনে ফেলবে শরীরের রোগ প্রতিরোধ যোদ্ধারা।

কারন বড় বয়সের চিকেন পক্স খুবই মারাত্বক এবং কখনও কখনও মৃত্যুর কারও বটে বিশেষ করে দূর্বল এবং গর্ভবতী মহিলাদের জন্য। যেখানে ছোট বয়সে শুধু কদিনের জ্বর-ফোস্কা-চুলকানী বা একটু ব্যাথাতেই সীমাবদ্ধ এ জিনিশ।

উমাইর চৌধুরী

''আজকে উমর পন্থী পথীর দিকে দিকে প্রয়োজন
পিঠে বোঝা নিয়ে পাড়ী দেবে যারা প্র্ন্তার প্রাণ- পণ,
উষর রাতের অনাবাদী মাঠে ফলাবে ফসল যারা
দিক-দিগন্তে তাদের খুঁজিয়া ফিরিছে সর্বহারা।''

--ফররুখ আহমদ

উমাইর চৌধুরী

''আজকে উমর পন্থী পথীর দিকে দিকে প্রয়োজন পিঠে বোঝা নিয়ে পাড়ী দেবে যারা প্র্ন্তার প্রাণ- পণ, উষর রাতের অনাবাদী মাঠে ফলাবে ফসল যারা দিক-দিগন্তে তাদের খুঁজিয়া ফিরিছে সর্বহারা।'' --ফররুখ আহমদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top